ঢাকামঙ্গলবার , ১৪ মে ২০২৪
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ খবর

কমে যাচ্ছে দেশীয় জলচর আর শহুরে পাখি কিন্তু কেন

রিপোর্টার সৈয়দ মো:স্বাধীন
মে ১৪, ২০২৪ ৫:১২ অপরাহ্ণ । ১৮ জন
Link Copied!

print news

শাপলা শালুকের পাতায় চড়ে খুনসুটিও কমেছে বক মাছরাঙ্গা কিংবা পানকৌড়ির এখন আর আগের মতো পাখির ডাকে অনেকের ঘুম ভাঙে না। ডালে ডালে শোনা যায় না ময়না টিয়ার গান দেশ থেকে কী তাহলে পাখি কমে যাচ্ছে এমন প্রশ্নে বিস্ময়কর তথ্য দিচ্ছে পাখি গবেষক ও বিশেষজ্ঞরা।তারা বলছেন, গত ৩০ বছরে দক্ষিণএশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশে ভয়ঙ্করভাবে কমছে পাখির সংখ্যা।গত দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশের পাখি জরিপ ও গবেষণার নেতৃত্ব দিচ্ছেন ইনাম আল হক,পাখি গণনার কিছু পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি বলেন, “৩০ বছরে পাখি কীভাবে কমেছে সেটা পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে। ৩০ বছর আগে যেখানে একটি হাওর এলাকায় আমরা ৬ লাখ পাখি পেয়েছিলাম। এ বছর একই সময় সেখানে গুনে পেয়েছি মাত্র এক লাখ পাখি।”তিনি বলছেন, এটা শুধু একটা হাওর বা নির্দিষ্ট এলাকার চিত্র না। দেশের এমনও অনেক জলাশয় রয়েছে যেখানে একসময় লক্ষাধিক পাখি দেখা যেতো, এখন সেখানে মাত্র ৪০-৫০টি পাখি পাওয়া যাচ্ছে।গবেষক ও পাখি বিশেষজ্ঞদের মতে, সারা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি পাখি কমছে এশিয়া মহাদেশে। এশিয়ার মধ্যে পাখি কমছে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায়। আর এর মধ্যেই এই হার সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশে।জলজ পাখি ছাড়া অন্য পাখি গণনা, জরিপ বা পরিসংখ্যান হয়নি বাংলাদেশে। তবে বেশ কিছু তথ্য ও কারণ উল্লেখ করে তারা বলছেন, দেশে জলজ পাখির পাশাপাশি কমছে শহর ও গ্রামের বনাঞ্চলে থাকা নানা জাতের পাখি।গবেষকরা বলছেন, অব্যাহত উন্নয়নের ফলে পাখির আবাসস্থল ধংস হয়ে যাওয়া ও কৃষিকাজে রাসায়নিক এবং বিষ ব্যবহারের ফলে দিনে দিনে কমে যাচ্ছে পাখি।প্রকৃতি সংরক্ষণ বিষয়ক আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন আইইউসিএন’র কর্মকর্তা ও পাখি বিশেষজ্ঞ সারোয়ার আলম বলেন, “গত ২২ বছরের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে শুধুমাত্র টাঙ্গুয়ার হাওরেই ৫৯ ভাগ পাখি কমে গেছে বলেনএমতাবস্থায় করনিয় কি উল্লেখ করে বলেন হাওর বন এর বিষয়ে সজাগ দৃস্টি।