ঢাকামঙ্গলবার , ২১ মে ২০২৪
আজকের সর্বশেষ খবর

জোরদার নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে রাজবাড়ীর তিন উপজেলায় ভোটগ্রহণ শুরু

রিপোর্টার ফয়সাল হোসেন 
মে ২১, ২০২৪ ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ । ১২৩ জন
Link Copied!

print news

জোরদার নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে রাজবাড়ীর তিন উপজেলায় ভোটগ্রহণ শুরু পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে রাজবাড়ী সদর, গোয়ালন্দ ও বালিয়াকান্দি উপজেলায় দ্বিতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল ৮টা থেকে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।তিন উপজেলায় ৫ লাখ ৯১ হাজার ৬৫২ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। তিন উপজেলার মোট ২২৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ৯১টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ বলে চিহ্নত করা হয়েছে। তবে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ।জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ভোটের পরিবেশ শান্ত রাখতে পুলিশ, র‍্যাব, বিজিবি, আনসার বাহিনী মোতায়েন থাকবে।এছাড়া জুডিশিয়াল, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের স্টাইকিং ও মোবাইল টিম মোতায়েন থাকবে। তিন উপজেলার মধ্যে রাজবাড়ী সদরে ১৮ জন, গোয়ালন্দে ৮ জন ও বালিয়াকান্দিতে ১১ জন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এসব উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ৫ লাখ ৯১ হাজার ৬৫২ জন। এছাড়া নির্বাচনে তিন উপজেলায় ৬ প্লাটুন বিজিবি ও র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‍্যাব) স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে ৩ প্লাটুন (৪৮ জন) নির্বাচনের মাঠে কাজ করবে। এছাড়া নির্বাচনে ভোটের মাঠে জেলা প্রশাসকের ২৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ৩ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবে।ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় ধাপের রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোরশেদা খাতুন বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটগ্রহণের লক্ষ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছ। ভোটাররা যাতে নিরাপদে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন সে জন্য কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার রয়েছে। কোনো রকম অনিয়ম হলে বিধি অনুযায়ী তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জি.এম. আবুল কালাম আজাদ পিপিএম (সেবা) বলেন, তিন উপজেলার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জেলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ রাখতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। তিন উপজেলায় মোট ৯৪০ জন পুলিশ সদস্য, ৩ হাজার ১৭১ জন আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়া সাদা পোশাকে পুলিশ নির্বাচনের মাঠে কাজ করবে।