ঢাকাশুক্রবার , ১৯ এপ্রিল ২০২৪
  • অন্যান্য
আজকের সর্বশেষ খবর

শ্রীপুরে সভা ডেকে নিজেই প্রার্থিতা ঘোষণা করলেন প্রার্থি 

সৈয়দ মোঃ স্বাধীন গাজীপুর জেলা প্রতিনিধি
এপ্রিল ১৯, ২০২৪ ৪:৪৩ অপরাহ্ণ । ২২ জন
Link Copied!

print news

চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জামিল হাসান (দুর্জয়)। তিনি গাজীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী রুমানা আলীর বড় ভাই। গত কাল বৃহস্পতিবার বিকেলে শ্রীপুরের নিজ বাড়িতে মতবিনিময় সভা করে এ ঘোষণা দেন তিনি।জামিল হাসান গাজীপুর-৩ আসনের টানা পাঁচবারের সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী রহমত আলীর ছেলে। তিনি ২০১৮ ও ২০২৪ সালে সংসদ নির্বাচনে গাজীপুর-৩ (শ্রীপুর ও গাজীপুর সদরের আংশিক) আসনে সংসদ সদস্য নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় নির্বাচনে অংশ নেননি। সবশেষ সংসদ নির্বাচনে প্রার্থিতা ঘোষণা দিয়ে মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন তিনি। পরে তাঁর ছোট বোন ও তৎকালীন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য রুমানা আলীকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান।প্রার্থিতা ঘোষণা করার সময় বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মীর উদ্দেশে জামিল হাসান বলেন, ‘আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আমি অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বাসায় বসে সিদ্ধান্ত কোনো গণতান্ত্রিক চর্চা নয়। উত্তরার বাসায় নয়, শ্রীপুরের মানুষের ভাগ্যের সিদ্ধান্ত শ্রীপুরের মাটিতেই দিতে চাই।’ এ সময় নেতা-কর্মীদের কিছু নির্দেশনা দিয়ে তিনি বলেন, ফেসবুকেও কাউকে আক্রমণ করা যাবে না। শতভাগ নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে নির্বাচন করতে হবে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে শতভাগ সহযোগিতা করতে হবে। এ ছাড়া গত সংসদ নির্বাচনে দলীয় বিভাজনের পরিপ্রেক্ষিতে কাউকে কোনো আক্রমণাত্মক কথা বলা যাবে না।এবার মোট চার ধাপে ৪৮০টি উপজেলা পরিষদে ভোট হওয়ার কথা। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ৮ মে প্রথম ধাপে ১৫০টি উপজেলা পরিষদে ভোট হবে। দ্বিতীয় ধাপে ১৬৬টি উপজেলা পরিষদে ভোট হবে আগামী ২১ মে। এ ধাপে শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তৃতীয় ধাপে ১১২টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে আগামী ২৯ মে। এমতাঅবস্তায় উল্লেখ্য, দলের মন্ত্রী-সংসদ সদস্যদের সন্তান, পরিবারের সদস্য ও নিকটাত্মীয়দের উপজেলা ভোট থেকে সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। ইতিমধ্যে দলটির দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদকেরা নিজ নিজ বিভাগের মন্ত্রী-সংসদ সদস্যদের দলের এ নির্দেশ জানাতে শুরু করেছেন। এরপরও কেউ ভোট থেকে সরে না দাঁড়ালে বহিষ্কারসহ সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গত কাল বৃহস্পতিবার বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও দলীয় নেতারা যাতে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করতে না পারেন, সে জন্য কঠোর সাংগঠনিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।